নরেন্দ্র মোদী

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর লোকপ্রিয়তার সামনে রাজনৈতিক অস্তিত্বের চাপে পড়লেন মমতা ব্যানার্জী

দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা যে কতটা তা পুরো দেশ জানে। তবে শুধু দেশ নয় বিদেশেও মোদীজির জনপ্রিয়তা দেখার মতো। আর সেই প্রধানমন্ত্রীকে ২০১৯ এ হারানোর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী।

কিছুদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে একজোট হবার জন্য ছুটে গেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আবার কালকে এই তীব্র মোদী বিরোধী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চাদর ও ফুল দিয়ে সাদর আমন্ত্রণ করে নেন শান্তিনিকেতন। যাইহোক কাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শান্তিনিকেতনে নামার সাথে সাথে লোকজনের ভিড় দেখার মতো ছিল।

জানলে অবাক হবেন কাল বোলপুর ও শান্তিনিকেতনের সমস্থ রাস্তায় মমতা ব্যানার্জীর ছবিসহ ব্যানার লাগিয়েছিল ঠিকই কিন্তু শান্তিনিকেতনে বেশিরভাগ মানুষ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দেখার জন্য এসেছিলেন । আর সেই কারণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, বাংলাদেশের মুখ্যমন্ত্রী শেখ হাসিনা,মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ও রাজ্যপাল যেই মুহূর্তে বাংলাদেশ ভবনে ঢুকেছিলেন সেই মুহূর্তে চারিদিকে মোদী মোদী রব এর আওয়াজ এ পরিপূর্ণ হয়েছিল।
চারিদিকে মমতা ব্যানার্জীর ছবি দিয়ে সাজানো থাকলেও শান্তিনিকেতনের প্রাঙ্গনে একটাই শব্দ(মোদী-মোদী) শোনা যাচ্ছিল। যদিও সেই মুহূর্তের ছবি একবারের জন্যেও কোনো বাংলা মিডিয়া দেখায়নি।

শুধুমাত্র হিন্দি নিউস চ্যানেল জী নিউজ ও অন্যান কিছু চ্যানেল সেই ছবি দেখিয়েছিল। তবে শুধু মোদী-মোদী রব নয় সেই সাথে চলছিল শঙ্খ ও উল্লুধনী। তীব্র মোদী বিরোধী মমতা ব্যানার্জী হয়তো একবারের জন্যেও ভাবেননি যে তার রাজ্য পশ্চিমবঙ্গেও এনমতা হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর লোকপ্রিয়তা যে এতটা তা হয়তো কল্পনাও করতে পারেননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী।

Facebook Comments
Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Open

Close