মহান ভারত

মুসলিম শিক্ষক নিজের পিতার মত এক হিন্দুর শেষকৃত্য সম্পন্ন করলেন, আর এর কারণ শুনলে আপনি অবাক হবেন

আমাদের দেশে এক প্রচলিত কথা আছে, ‘হিন্দু মুসলিম শিখ ইসাই, একসাথে সবাই ভাই-ভাই” কিন্তু এরকম অনেক কম দেখা যায়। কম দেখা গেলেও একবারে যে দেখা যায় না, সেটাও না। এবার এরকমই এক কাজ করে নজীর গড়লেন এরাজ্যের এক স্কুল শিক্ষক। রাজ্যের এক মুসলিম শিক্ষক হিন্দুদের আচার-আচরণ পালন করে, নিজের এক হিন্দু বন্ধুর শেষকৃত্য সম্পন্ন করলেন। এর পিছনেও রয়েছে একটা কারণ, যেটা শুনে আপনার চোখ দিয়ে জল পরবে।

জলপাইগুড়ি জেলার বানেরহাটের বাসিন্দা আশফাক একজন স্কুল শিক্ষক। ওনার হিন্দু বন্ধু সঞ্জয় কুমার বিশ্বাস আর উনি একসাথে পড়ান। সঞ্জয় কুমার আশফাকের তুলনায় অনেক বড়। আর কিছুদিন আগে ওনার মৃত্যু হয়। সঞ্জয় কুমারের পরিবারে শুধুমাত্র ওনার তিন কন্যা আছেন, আর এইজন্যই আশফাক এক বন্ধু এবং এক পুত্রের মত নিজের কর্তব্য পালন করে সঞ্জয় কুমারের শেষকৃত্য সম্পন্ন করলেন। শুধু তাই নয়, সঞ্জয়ের পরিবারের সাথে ১১ দিনের শোক পালন করে নিজে ন্যাড়াও হলেন।

আশফাক জানায়, ‘সঞ্জয় কুমার ওনার পিতৃতুল্য ছিলেন। ওনার থেকে অনেক কিছু শিখেছি আমি” আশফাক বলেন, সঞ্জয় কুমার ২০০৫ সালে অবসর নেন, আর তারপর থেকেই উনি স্কুলে আসাও বন্ধ করে দেন। কিন্তু তা স্বত্বেও তাঁদের বন্ধুত্বে ঘাটতি পরেনি। কারণ সঞ্জয়ের থেকে আশফাক সবথেকে দামি জিনিষ শিখেছিলেন, আর সেটা ছিল মানবতা।

আশফাক বলেন, ‘আমি উদারবাদি বিচারধারার মানুষ, আর এগুলো সব আমি সঞ্জয় স্যারের থেকে শিখেছি। আমি সবসময় বলি, আমার তিনজন পিতা ছিলেন, একজন জিনি আমাকে জন্ম দিয়েছে, একজন জিনি আমাকে শিক্ষা দিয়েছেন, আরেকজন হল সঞ্জয় স্যার। উনি আমাকেই বিশ্বের সবথেকে দামি জিনিষ মানবতার পাঠ পড়িয়েছিলেন। উনি কোনদিনও সমাজের চিন্তা না করে, যেটা সত্য সেটাকে আপন করে নিয়েছিলেন। আমিও আজ সেটাই করছি”

Facebook Comments

Related Articles

Open

Close