রাজনীতি

অবশেষে ভগবান রামের আবেদন শোনার সময় পেল সুপ্রিম কোর্ট, বানানো হল ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ

কয়েক শো বছর পুরনো রাম মন্দির মামলা সম্ভবত এবার বিচার পেতে চলেছে। দেশের সবথেকে পুরনো এবং সবথেকে বিতর্কিত রাম মন্দির মামলা গত ৯ বছর ধরের সুপ্রিম কোর্টের বিচারের অপেক্ষা করছিল। একদিকে কংগ্রেস যেদিকেলোকবল, অর্থ এবং কপিল সিব্বলের মত নামি উকিল দিয়ে এই মামলা বিলম্ব করার আগা গোড়া চেষ্টা করে যাচ্ছিল , অন্যদিকে আশানুরূপ ভাবেই রাম মন্দিরের পক্ষে লড়াই করে যাচ্ছে একমাত্র রাজনৈতিক দল বিজেপি।

আজও অযোধ্যায় অস্থায়ী তাঁবুতে বিরাজ করছেন রাম লালা

গত ৪ঠা জানুয়ারি প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দিয়েছিলেন যে এই মামলার শুনানি আগামী ১০ই জানুয়ারি থেকে শুরু হবে, এবং এই মমলার শুনানি  চলবে ৫ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে।

কে কে থাকছেন এই বেঞ্চে?

৫ সদস্যের এই সাংবিধানিক বেঞ্চের প্রধান থাকবেন রঞ্জন গগৈ, জিনি সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি, এছাড়া থাওবেন জাস্টিস শরত অরবিন্দ বোবডে, জাস্টিস এনভি রামান্না, জাস্টিস উদয় ললিত এবং জাস্টিস ওয়াই চন্দ্রচূড়।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ

কেন আশার আলো দেখছে হিন্দুরা 

জানিয়ে রাখি যে সাংবিধানিক বেঞ্চ হল দেশের সর্বোচ্চ বেঞ্চ, এর পরে এই রায়কে আর কোথাও চ্যালেঞ্জ জানানো যায় না। এই বেঞ্চের প্রধান থাকেন স্বয়ং প্রধান বিচারপতি। আর এর থেকেও বড় কথা হল যে মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন শুনানি চলে। উল্লেখ্য যে তিন তালাক মামলার রায় এই সাংবিধানিক বেঞ্চই দিয়েছিল।

অযোধ্যায় পরিকল্পিত রাম মন্দির

তবে অনেক আগেই এই মামলার শুনানি শুরু হতে পারতো, কিন্তু মুসলমদের হয়ে দাঁড়ানো উকিল কংগ্রেসের বির্ষীয়ান নেতা কপিল সিব্বল নানা অছিলায় মামলার শুনানি পিছোতে থাকেন। গত বছর তিনি আদালতকে জানান যে এর শুনানি যেন আগামী লোকসভা নির্বাচনের পরে শুরু করা হয়, নইলে শাসক দল এর রাজনৈতিক লাভ নিতে পারে।

আসলে এই কথার মাধ্যমে তিনি তার দলের আশঙ্কাকেই আদালতে স্বীকার করেছিলেন যে এই রায়ের ফলে কংগ্রেসের আগামী নির্বাচনে ভরাডুবি হবে।

Facebook Comments

Related Articles

Open

Close