রাজনীতি

SSC তে চাকরির আশা ভুলে যান, আর ২ হাজার টাকা মাইনেতে শিক্ষকতা করতে তৈরী হোন

পুলিশ নিয়োগের বদলে সিভিক ভলেন্টিয়ার, আর এবার আরেক ধাপ এগিয়ে শিক্ষকের বদলে ইন্টার্ন নিয়োগ করার সিদ্ধান্তনিল রাজ্য সরকার। আর এর জেরেই B.Ed করে ঘরে বসে থাকা হাজার হাজার শিক্ষিত বেকার যুবক যুবতীর সাথে কঠিন ঠাট্টা করলো মমতা ব্যানার্জীর সরকার। আজ রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়েছে যে রাজ্যে প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক স্তরে ইন্টার্ন (শিক্ষানবিশ) শিক্ষক নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার।

এর জন্য ন্যুনতম যোগ্যতা লাগবে স্নাতক পাস, অর্থাৎ কলেশ পাশ করে বেরিয়েই আবেদন করতে পারবে বেকার যুবক যুবতীরা । এর আগে একই ভাবে পুলিশ নিয়োগ এক প্রকার বন্ধ করে দিয়ে তার বিনিময়ে হাজার হাজার সিভিক ভলেন্টিয়ার নিয়োগ করেছিল রাজ্য সরকার। এর আগে খরচ বাঁচাতে সিপিএম আমলেও একই ভাবে পার্শ শিক্ষক বা প্যারা টিচার নিয়োগ করা হয়েছি, কাগজে কলমে এদের চুক্তিভিত্তিক বলা হলেও এখনো তারা  নাম মাত্র বেতনে করে যাচ্ছে ।

আজকের এই নতুন নিয়োগের পেছনে রাজ্য সরকারের যুক্তি যে গ্রামীন এলাকার বিদ্যালয়ে শিক্ষক পাওয়া যায়না তাই এদের নিয়োগ করে সেই ঘাটতি পূরণ করতে চায় রাজ্য সরকার। এর জন্য প্রাথমিক শিক্ষকদের মাসিক ২ হাজার এবং মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষকদের আড়াই হাজার টাকা বেতন দেওয়া হবে, এদের চুক্তির মেয়াদ হবে ২ বছর।

তবে রাজ্য সরকার মুখে এই অজুহাত দিলেও আসল কারণ তার পুরো উলটো। বিগত বহু বছর ধরে রাজ্যে SSC নিয়োগ বন্ধ, তার আসল কারণ হল রাজ্য সরকারের আর্থিক ঋনের বোঝা। তাই নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ করে এই বোঝা বাড়াতে একেবারেই অপারক রাজ্য সরকার। তাই তারা বাধ্য হয়েই শিক্ষক ঘাটতি মেটাতে এই নতুন পন্থা নিল বলে মনে করা হচ্ছে। এদিকে বছরের পর বছর চাকরি পাবার আশায় অপেক্ষা করে থাকা রাজ্যের শিক্ষত যুবক যুবতীদের আশা যেন শেষ হতে বসেছে, হতাশ হয়ে একাধিক চাকরি প্রার্থী আত্মহত্যার পথও বেছে নিয়েছে। আর এর মধ্যেই এই নিয়োগের খবর তাদের আশা একদম শেষ করে দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

Facebook Comments
21K Shares

Related Articles

Close